কিভাবে ডায়াবেটিস চিরতরে নিরাময় হবে

কিভাবে ডায়াবেটিস চিরতরে নিরাময় হবে এই বিষয়ে অনেকেরই প্রশ্ন রয়েছে। কারন বর্তমান সময়ে ডায়াবেটিস একটি বড় সমস্যার নাম। প্রতি ৭ সেকেন্ডে ১ জন ডায়াবেটিস রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। ১৯৮০ সালে বিশ্বে প্রায় ১০ কোটি ৮০ লাখ ডায়াবেটিস রোগীর সংখ্যা ছিল। বর্তমান সময়ে সেই সংখ্যা বেড়ে গিয়ে ৪২ কোটি ২০ লাখে দাড়িয়েছে। প্রতিদিনই ডায়াবেটিস এর সমস্যা বেড়েই চলছে। ডায়াবেটিস এর প্রভাব চারদিকে ছড়িয়ে পড়ছে।

ডায়াবেটিস একটি বিপাকীয় প্রক্রিয়া সংশ্লিষ্ট রোগ যা আপনার শরীরে যথেষ্ট পরিমাণে ইনসুলিন উৎপাদন ক্ষমতা কমিয়ে দেয়। যার কারনে রক্তে সুগার এর মাএা অস্বাভাবিক ভাবে বৃদ্ধি পায়। আপনার যখন সুগারের মাত্রা অতিরিক্ত হারে বেড়ে যাবে তখন কিছু বিষয় লক্ষণ দেখা দিবে। যেমন ঘন ঘন প্রসাব করা, ক্ষত শুকাতে দেরি হওয়া, ক্লান্তি বোধ বেড়ে যাওয়া, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যাওয়া ইত্যাদি লক্ষণ গুলি দেখা যাবে।

ডায়াবেটিস দুই ধরনের হয়ে থাকে। টাইপ-১ এবং টাইপ-২ ডায়াবেটিস। টাইপ ১ ডায়াবেটিস ইনসুলিন নির্ভরশীল। টাইপ-২ ডায়াবেটিস ইনসুলিন নিরপেক্ষ ডায়াবেটিস। টাইপ-২ ডায়াবেটিস চিরতরে নিরাময় হবে বা এর পদ্বতি রয়েছে। একমাত্র ওজন কমানোর মাধ্যমে টাইপ-২ ডায়াবেটিস নিরাময় পাওয়া সম্ভব। এজন্য আপনাকে ওজন কমাতেই হবে।

কিভাবে ডায়াবেটিস চিরতরে নিরাময় হবে

টাইপ-২ ডায়াবেটিস হওয়ার কারণ হচ্ছে লিভারে ফ্যাট জমা হওয়া এবং শরীরের নির্দিষ্ট পরিমাণের চেয়ে যদি অতিরিক্ত ফ্যাট জমে থাকে সে ক্ষেত্রে টাইপ-২ ডায়াবেটিস আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। অতিরিক্ত ফ্যাট এর জন্য রক্তে শর্করার পরিমাণ বৃদ্ধি পায় এবং ইনসুলিন উৎপাদন ক্ষমতা প্রতিরোধ করে।

যদি ১৫ কেজি বা তার বেশি ওজন কমাতে পারেন তাহলে টাইপ-২ ডায়াবেটিস খুব দ্রুত নিয়ন্ত্রণ বা দূর করতে পারবেন। আপনি নিয়মিত নির্দিষ্ট ডায়েট ও ব্যায়ামের মাধ্যমে শরীরের ওজন বা ফ্যাট কমাতে পারবেন এবং সেই ধারা অব্যাহত রেখে আপনার ডায়াবেটিস চিরতরে দূর করতে পারবেন। এজন্য অবশ্যই আপনাকে নির্দিষ্ট ডায়েট এবং নিয়মিত ব্যায়াম এর দুটি পদ্ধতি অবলম্বন করতেই হবে। একমাত্র সঠিক নিয়মে পারবেন আপনার টাইপ-২ ডায়াবেটিস কে বিদায় জানাতে।

ডায়াবেটিস চিরতরে নিরাময় হবে এর কিছু পদ্ধতি

ডায়াবেটিস কমানোর প্রধান পদ্ধতি হল স্বাস্থ্যকর ওজন নিয়ন্ত্রণ রাখা। ওজন নিয়ন্ত্রণ ডায়াবেটিস এর পাশাপাশি অন্যান্য অসুস্থতা থেকে রক্ষা পাওয়া যায়। সঠিকভাবে ওজন নিয়ন্ত্রণ থাকলে আপনার ৭০% ডায়াবেটিস কমে যাবে।

ডায়াবেটিস এর অন্যতম একটি ব্যায়াম হল হাঁটাহাঁটি করা। দিনে নিয়মিত ৩০ – ৪০ মিনিট হাটবেন। প্রতিদিন হাঁটাহাঁটি করার ফলে আপনার শরীরে ইনসুলিন মাত্রা ভারসাম্যপূর্ণ অবস্থায় থাকবে। এর ফলে আপনার ডায়াবেটিস এর ঝুঁকিও কমবে।

প্রতিদিন অন্তত দুই কাপ কফি পান করুন। এই কফি আপনার টাইপ টু ডায়াবেটিস ঝুঁকি কমাতে সাহায্য করে। কফিতে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ডায়াবেটিস কমাতে সাহায্য করে। তবে অবশ্যই চিনি ছাড়া কফি পান করতে হবে।

প্রতিদিনের ডায়েটে অবশ্যই সালাদ রাখবেন। সালাদ রক্তের সুগারের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখে এবং আপনার ডায়াবেটিসের ঝুঁকিও কমায়। সালাদে টমেটো, শসা, গাজর, পেঁয়াজ, রসুন, লেটুস ইত্যাদি রাখতে পারেন। সালাদ এর সাথে ভিনেগার যুক্ত করে খেতে পারেন তবে ভিনেগার খাওয়ার পূর্বে অবশ্যই ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করে নিবেন।

প্রতিদিন খাদ্যতালিকায় দারুচিনি রাখবেন। দারুচিনির শরীরের অস্বাস্থ্যকর কোলেস্টেরল এবং ট্রাইগ্লিসারাইড এর মাত্রা কমিয়ে আনে। এর মাধ্যমে প্রাকৃতিক ভাবে ডায়াবেটিসের ঝুকি ৪৮% কমে আসে। দারুচিনি পাউডার বা তেল হিসেবেও খাদ্য তালিকায় রাখতে পারেন।

শস্য জাতীয় খাবার খাদ্যতালিকা অবশ্যই রাখবেন। যেমন ভুট্টা, ওটমিল, ব্রাউন রাইস, বার্লি, বাজরা, সিম আটি ইত্যাদি। এই পূর্ণ শস্য জাতীয় খাদ্য দিয়ে সকালের নাস্তা করতে পারেন। এই খাদ্যে আঁশ থাকার কারণে রক্তে সুগারের মাত্রা কমিয়ে আনে। এই খাদ্য কোষ্ঠকাঠিন্য, উচ্চ রক্তচাপ এর পাশাপাশি ডায়াবেটিসের ঝুঁকিও কমায়।

আপনাকে অবশ্যই ফাস্টফুড খাবার এড়িয়ে চলতে হবে। এই ফাস্টফুড খাবার হজমের সমস্যা, অতিরিক্ত কোলেস্টরেল, হৃদরোগ, ইনসুলিন এর ঘাটতি সহ অন্যান্য সমস্যা দেখা দেয়। যা একজন ডায়াবেটিস রোগীর জন্য ক্ষতিকর। সুস্থ থাকতে হলে আপনাকে অবশ্যই ফাস্টফুড খাবার থেকে দূরে থাকতে হবে।

আপনাকে মানসিক চাপ থেকে সবসময় মুক্ত থাকতে হবে কারণ এই মানসিক চাপ আপনার শরীরের অনেক রোগের কারণ হয়ে দাঁড়ায়। ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে বাধা দেয় মানসিক চাপ। মানসিক চাপ কমাতে বিভিন্ন কৌশল আয়ত্ত করুন ও যোগ ব্যায়াম করুন। এর ফলে শরীরে কর্টিসোল হরমোন এর মাত্রা নিয়ন্ত্রণে থাকবে। পাশাপাশি ডায়াবেটিসের ঝুঁকিও কমবে।

মানসিক চাপের মতই ধুমপান ডায়াবেটিসের ঝুঁকি বাড়ায়। ধূমপান ডায়াবেটিস, ফুসফুস ক্যান্সার রোগ বৃদ্ধি করে সুতরাং ধূমপান থেকে দূরে থাকুন।

আরও পড়ুন: ডায়াবেটিস কমানোর উপায় ২০২২

আরও পড়ুন: ডায়াবেটিস এর লক্ষণ গুলো কি কি

আরও পড়ুন: ডায়াবেটিস রোগীর খাদ্য তালিকা

আমাদের শেষকথা 

আজকের আর্টিকেল এর মাধ্যমে শেয়ার করেছি কিভাবে টাইপ-২ ডায়াবেটিস চিরতরে নিরাময় হবে এবং কিছু দিক নির্দেশনা এই বিষয়ে। আশা করি উপকৃত হবেন।

আমাদের এই ব্লগের মাধ্যমে আমরা প্রতিনিয়ত তথ্যবহুল আর্টিকেল পাসপোর্ট, ভোটার আইডি কার্ড, টেকনোলজি,  কম্পিউটার, মোবাইল, ভ্রমণ, ইত্যাদি সম্পর্কিত বিভিন্ন আর্টিকেল পাবলিশ করে আসছি। আশা করি আপনারা আমাদের এই ব্লগটি পছন্দ করবেন।